ডেস্ক রিপোর্ট

১৬ এপ্রিল ২০২২, ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ

বৈশ্বিক বৈচিত্র্য, ন্যায্যতা ও অন্তর্ভুক্তি প্রসারে মেটলাইফ এর ২.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের প্রতিশ্রুতি ঘোষণা

আপডেট টাইম : এপ্রিল ১৬, ২০২২ ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ

শেয়ার করুন

বিনিয়োগ, সেবা, সাপ্লাই চেইন, স্বেচ্ছাসেবা এবং সমাজসেবা মূলক কার্যক্রমের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিশ্বব্যাপী সুবিধাবঞ্চিত ও অবহেলিত জনশক্তির সার্বিক উন্নতি তরান্নিত করার জন্যে মেটলাইফ ২০৩০ সালের মধ্যে অর্জন যোগ্য বৈচিত্র্য, ন্যায্যতা ও অন্তর্ভুক্তি (diversity, Equity, Inclusion) সম্পর্কিত কয়েকটি অঙ্গীকার ঘোষণা করেছে।

বিস্তৃত পরিসরের এসব প্রতিশ্রুতি মেটলাইফ এর বৈশ্বিক সাস্টেইনেবিলিটি বা টেকসই উন্নয়নের কার্যক্রমকে আরও শক্তিশালী করবে এই অঙ্গীকারগুলো মেটলাইফের ব্যবসায়িক স্ট্র্যাটেজি এবং জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার সাথেও সঙ্গতিপূর্ণ।

মেটলাইফের প্রেসিডেন্ট এবং প্রধান নির্বাহী মিশেল খালাফ বলেন, “মেটলাইফের লক্ষ্য সবার জন্য আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং ন্যায্য বিশ্ব গড়ে তোলা। আমাদের এই অঙ্গীকারসমূহের মাধ্যমে আমরা আমাদের বৈচিত্র্য, ন্যায্যতা ও অন্তর্ভুক্তি মূলক উদ্যোগ সমূহকে আরও সামনে নিয়ে যাচ্ছি। এই সুস্পষ্ট অঙ্গীকারসমূহ আমাদের অগ্রগতিতে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনে উৎসাহিত করবে.”

২০৩০ সালের মধ্যে মেটলাইফ নিম্নলিখিত অঙ্গীকারসমূহ পূরণে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ:

১। নারী, সংখ্যা লঘু এবং বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের ব্যবস্থা করা।

২। বিভিন্ন ধরণের সক্ষমতার সাপ্লায়ারদের সাথে কাজ করার মাধ্যমে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করা।

৩। সুবিধা বঞ্চিত ও অবহেলিত জনগোষ্ঠীকে সহায়তা প্রদানে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন ১৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অনুদান ।

৪। সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর ওপর বিশেষ গুরুত্ব প্রদানকে গুরুত্ব আরোপ করে কর্মচারীরা ৮,০০,০০০ ঘণ্টা স্বেচ্ছাসেবার প্রতিশ্রুতি ।

৫। সুবিধাবঞ্চিত মানুষের চাহিদা পূরণে সমাধান এবং তথ্য প্রদান করা।

৬। বৈচিত্র্য, ন্যায্যতা ও অন্তর্ভুক্তি এর ব্যাপারে সচেতনতা তৈরি করে এমন গবেষণায় সহায়তা প্রদান করা।

৭। বৈশ্বিকভাবে কর্মক্ষেত্রে ডাইভারসিটি বা বৈচিত্রতা প্রসারে কাজ করা।

২০৩০ সালের মধ্যে এসব প্রতিশ্রুতি পূরণে মোট আর্থিক বিনিয়োগ দাঁড়াবে ২.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর অগ্রগতির নিয়মিত আপডেট প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক সাস্টেইনেবিলিটি প্রতিবেদনে প্রদান করা হবে। আরও জানা যাবে এই লিংকে: https://www.metlife.com/sustainability/MetLife-sustainability/DEI-commitments/

মেটলাইফ
Metlife Inc.  (NYSE:MET), এর অংগপ্রতিষ্ঠান এবং সহযোগী প্রতিষ্ঠান (“Metlife”) এর সমন্বয়ে বিশ্বের অন্যতম একটি আর্থিক সেবা প্রদানকারী কোম্পানি যা তার ব্যক্তি এবং প্রাতিষ্ঠানিক গ্রাহকদের বীমা, এ্যনুইটি, গ্রুপ বীমা ও সম্পদ ব্যবস্থাপনা সেবা প্রদানের মাধ্যমে পরিবর্তনশীল বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে সাহায্য করে। ১৮৬৮ সালে প্রতিষ্ঠিত মেটলাইফ বিশ্বের ৪০ টিরও বেশি দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এবং যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, লাতিন আমেরিকা, এশিয়া, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের বাজারে নেতৃস্থানীয় অবস্থানে রয়েছে। ১৯৫২ সালে বাংলাদেশে ব্যবসা প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে মেটলাইফ-এর এশিয়া যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে মেটলাইফ বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ জীবনবীমা প্রতিষ্ঠান। প্রায় ১০ লক্ষেরও বোশ গ্রাহকের সেবায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানটি দেশের অন্যতম বৃহৎ আন্তর্জাতীক বীমা প্রতিষ্ঠান। বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করুন: www.metlife.com.bd

মেটলাইফ ফাউন্ডশন
মেটলাইফ ফাউন্ডেশনে আমরা বিশ্বজুড়ে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের জন্য সুযোগ বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা মেটলাইফের কর্মীদেরকে সেচ্ছাসেবামূলক কাজে নিয়োজিত করার পাশাপাশি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এবং সামাজিক উদ্যোগসমূহের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধির সমাধান এবং শক্তিশালী কমিউনিটি সৃষ্টির জন্য কাজ করি। মেটলাইফের কর্পোরেট অবদান এবং কামিউনিটিতে অংশগ্রহণ করার সুদীর্ঘ ঐতিহ্য অব্যাহত রাখার উদ্দ্যেশ্যে ১৯৭৬ সালে যাত্রা শুরু করে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন। ২০২০ সালে যে সকল দেশে মেটলাইফ রয়েছে সে সকল দেশে, কমিউনিটিতে ইতিবাচক অবদান রাখার লক্ষ্যে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন ৯০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি অনুদান প্রদান এবং নানা উন্নয়নমূলক প্রোগ্রামে ৮৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি বিনিয়োগ করেছে। আমাদের আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধির প্রচেষ্টা বিশ্বের ৪২ টি দেশের ১৩.৪ মিলিয়নের বেশি নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষকে উপকৃত করেছে। বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করুন: Metlife Foundation

শেয়ার করুন