ডেস্ক রিপোর্ট

১৫ জুন ২০২২, ৭:২০ পূর্বাহ্ণ

পালিত হচ্ছে সাবেক মেয়র কামরানের দ্বিতীয় মৃত্যবার্ষিকী

আপডেট টাইম : জুন ১৫, ২০২২ ৭:২০ পূর্বাহ্ণ

শেয়ার করুন

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ॥ সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রথম মেয়র, সিলেট পৌরসভার সর্বশেষ চেয়ারম্যান ও সাবেক কমিশনার, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আমৃত্যু কেন্দ্রীয় সদস্য, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ বুধবার। ২০২০ সালের আজকের এই দিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ দুপুর সাড়ে ১২টায় মানিকপীরটিলাস্থ মরহুমের কবর জিয়ারত ও বিভিন্ন ওয়ার্ডে দোয়া মাহফিলের নির্দেশনা দিয়েছে। অন্যদিকে পারিবারিকভাবে ব্যাপক কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। দুই দিন ব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে ছিল গতকাল মঙ্গলবার অসহায় ও নি¤œ আয়ের মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ ও রাতে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল। আজ বুধবার খতমে কোরআন, মিলাদ মাহফিল, সকাল সাড়ে ১১টায় ছড়ারপাড়স্থ বাড়িতে বিশেষ দোয়া এবং বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানায় শিরনী বিতরণ।
বর্ণাঢ্য জীবনের অধিকারী বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের জন্ম ১৯৫৩ সালে। জিন্দাবাজার দুর্গাকুমার পাঠশালায় তার পড়াশোনার প্রথম পাঠ। এরপর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক, এমসি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিকের পাঠ শেষ করেন বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। সিলেট পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত করা হয় ২০০২ সালের ২৮ জুলাই। বিলুপ্ত পৌরসভার চেয়ারম্যান বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে নবগঠিত সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র করা হয়। এর পর ২০০৩ সালের ২০ মার্চের নির্বাচনে তিনি সিসিকের প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন। এর আগে ১৯৭৩ সালে সিলেট পৌরসভার সর্বকনিষ্ঠ কমিশনার নির্বাচিত হয়েছিলেন কামরান। ওয়ান ইলেভেনের সময় জেলে থেকে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন । কিন্তু ২০১৩ সালের নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নগর বিএনপির সাবেক সভাপতি আরিফুল হক চৌধুরীর কাছে হেরে যান তিনি। এরপর ২০১৮ সালের সিটি নির্বাচনেও আরিফের কাছে হেরে যান কামরান।
বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ১৯৬৮ সালে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। তিনি দীর্ঘদিন সিলেট শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০২ সালে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি। ২০১৯ সাল পর্যন্ত তিনি এই পদে ছিলেন।
সর্বশেষ ২০১৯ সালের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে কামরানকে বাদ দিয়ে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি করা হয় বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদকে। আর কামরানকে করা হয় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য। এর আগে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতির পাশাপাশি দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যের দায়িত্ব পালন করেন কামরান। ২০২০ সালের ১৫ জুন তিনি ইন্তেকাল করেন।

শেয়ার করুন