ডেস্ক রিপোর্ট

২০ জুন ২০২২, ১:৪৮ অপরাহ্ণ

আশ্রয়কেন্দ্রে জন্ম নিলো ‘বন্যা’

আপডেট টাইম : জুন ২০, ২০২২ ১:৪৮ অপরাহ্ণ

শেয়ার করুন

লবীব আহমদ : বন্যা কবলিত সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার গৌরীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আশ্রয়কেন্দ্রে জন্মগ্রহণ করেছে বন্যা নামের এক শিশুকন্যা। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নের গৌরীনগর গ্রামের কামাল উদ্দিন ও লুৎফা বেগমের কোল আলোকিত করে জন্ম নেয় এক ফুটফুটে শিশুকন্যা। বন্যাকালীন সময়ে জন্ম নেওয়ায় নাম রাখা হয় বন্যা।

কিছুদিন যেতে না যেতেই আবারো উজানের পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিতে সিলেট বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। ভয়ংকর রূপ নেয়া এই বন্যায় ঘরবাড়ি ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে হয় সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার প্রায় ৯০ শতাংশ পরিবারের জনসাধারণকে। এই ৯০ শতাংশের মধ্যে ছিলেন কামাল-লুৎফা দম্পতি। লুৎফা বেগম ছিলেন অন্তঃসত্ত্বা। কিন্তু, ভয়াবহ বন্যায় ঘরে কোমর পানি ঢুকে যাওয়ায় তাদের আশ্রয় নিতে হয় নিকটস্থ আশ্রয়কেন্দ্রে। আর এই আশ্রয়কেন্দ্রেই জন্ম হয় বন্যার।

এই ভোগান্তি ও দুর্ভোগের মধ্যেও এই বন্যার জন্মগ্রহণে আনন্দ বিরাজ করে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা মানুষদের মধ্যে।

গৌরীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম প্রহরী বোরহান উদ্দিন বলেন, বন্যায় গৌরীনগর গ্রামের ঘরবাড়ি ডুবে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই গৌরীনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নেন এলাকার প্রায় দেড় থেকে দুই শতাধিক বাসিন্দা। আর সেখানেই জন্ম হয় এক ফুটফুটে শিশুকন্যার।

শিশুটির পিতা কামাল উদ্দিন ও মা লুৎফা বেগম বলেন, আল্লাহর রহমতে আমরা এক কন্যা সন্তানের মালিক হয়েছি। কিন্তু, এই পরিস্থিতিতে খাদ্যসঙ্কট সহ বিভিন্ন সমস্যায় আছি। খাদ্যাভাবে শিশুসন্তান মায়ের পর্যাপ্ত দুধ পাচ্ছে না। যদি সরকারি কোনো সুযোগ-সুবিধা পেতাম, তাহলে শিশুসন্তান সহ একটু ভালোভাবে বেঁচে থাকতে পারতাম।

শেয়ার করুন