ডেস্ক রিপোর্ট

২৪ জুন ২০২২, ১২:১৫ অপরাহ্ণ

কাতার বিশ্বকাপের ৩২ অধিনায়ক একনজরে (শেষ পর্ব)

আপডেট টাইম : জুন ২৪, ২০২২ ১২:১৫ অপরাহ্ণ

শেয়ার করুন

আর মাত্র কয়েক মাসের অপেক্ষা। তারপরই মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে পর্দা উঠছে ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন দ্য আর্থ’ বিশ্বকাপ ফুটবলের। গেল ১৪ জুন সবশেষ প্লে-অফে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপের শেষ টিকিটটা কেটেছে কোস্টারিকা। তাতেই নিশ্চিত হয়েছে বিশ্বকাপের ৩২ দেশ। আট গ্রুপে ভাগ হয়ে দেশগুলো লড়বে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্বের জানান দিতে।

কাতার বিশ্বকাপের ৩২ অধিনায়ক একনজরে (শেষ পর্ব)

বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতায় অবতীর্ণ ৩২ দেশের মধ্যে ৩১ দেশকেই মূলপর্বে আসতে পাড়ি দিতে হয়েছে বাছাইপর্ব। স্বাগতিক দেশ হিসেবে কাতার বাছাইপর্বে অংশগ্রহণ ছাড়াই পেয়ে গেছে টিকিট। বাকি ৩১ দল নিজ নিজ মহাদেশীয় বাছাইপর্ব পেরিয়ে তবেই পেয়েছে কাতারের টিকিট। আফ্রিকা (সিইএফ), এশিয়া (এএফসি), ইউরোপ (উয়েফা), উত্তর আমেরিকা/মধ্য আমেরিকা/ক্যারিবিয়ান (কনক্যাকাফ) ও দক্ষিণ আমেরিকা (কনমেবল) অঞ্চলের কনফেডারেশনের অধীন দেশগুলো বাছাইপর্বে অংশ নিয়েছে।

কাতারে শিরোপার দ্বৈরথে থাকা ৩২ দলের ৩২ অধিনায়ককে নিয়ে সময় অনলাইনের ধারাবাহিক আয়োজনের শেষ পর্ব থাকছে আজ।

গ্রুপ ডি: ফ্রান্স, ডেনমার্ক, তিউনিশিয়া ও অস্ট্রেলিয়া

ফ্রান্স-
বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল ফরাসিরা। আসন্ন কাতার বিশ্বকাপেও ফেভারিট দলটি। যদিও চলতি নেশন্স লিগে সময়টা ভালো যাচ্ছে না একেবারেই। একের পর এক হারে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়েও এক ধাপ অবনমন হয়েছে করিম বেনজেমা-এমবাপ্পেদের। তবে বিশ্বকাপে ঠিকই ঘুরে দাঁড়াবে দল–এমন প্রত্যাশা সমর্থকদেরও। রাশিয়ার পর এবার কাতারেও দলের নেতৃত্বে হুগো লরিস। টটেনহ্যাম হটস্পারের হয়ে খেলা এই গোলরক্ষক আবারও কি পারবেন দলকে শিরোপা উপহার দিতে?

ডেনমার্ক-
ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা দশে থাকা ডেনমার্ক এবারও গ্রুপপর্বে ফেভারিট। ফ্রান্সের পর গ্রুপ ডি থেকে সুপার সিক্সটিনে খেলার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি ড্যানিশদেরই। দলটির নেতৃত্বে আছেন সাইমন কাইজার। সেন্টার ব্যাকে খেলা এই ফুটবলার ক্লাব এসি মিলানের হয়ে বর্তমানে খেলছেন।

তিউনিশিয়া-
আফ্রিকা মহাদেশের দল তিউনিশিয়া এ নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো অংশ নিতে যাচ্ছে ফুটবলের মহাযজ্ঞ ফুটবল বিশ্বকাপে। দলটির অধিনায়ক ইউসুফ সাকনি। বর্তমান ক্লাব আল দুহাইল।

অস্ট্রেলিয়া-
বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে আন্তঃমহাদেশীয় প্লে-অফে পেরুকে টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে হারিয়ে কাতারের টিকিট নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়া। ৩১তম দল হিসেবে কাতার বিশ্বকাপে নাম লেখায় অস্ট্রেলিয়া। দলটির নেতৃত্বে রয়েছেন ম্যাথিউ রায়ান। বর্তমান ক্লাব রিয়াল সোয়েদাদ।

গ্রুপ ই: জার্মানি, স্পেন, জাপান ও কোস্টারিকা

জার্মানি-
ফুটবল বিশ্বকাপে জার্মানি যে কতটা ধারাবাহিক, তা জানতে একটি তথ্যই যথেষ্ট: প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের মূলপর্বে তারা ১০০টি ম্যাচ খেলেছে, গোল দিয়েছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২২০টি। গেল ২১টি আসরের মধ্যে ১৯টি আসরে তারা অংশগ্রহণ করে হেরেছে মাত্র ২২টি ম্যাচ। খেলেছে সর্বোচ্চসংখ্যক সেমিফাইনাল (১৩ বার) এবং ফাইনাল (৮ বার)। বিশ্বকাপ জিতেছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চারবার। কাতার বিশ্বকাপেও ফেভারিট হিসেবে খেলতে নামবে জার্মানি। দলটির নেতৃত্বে আছেন ম্যানুয়েল নয়ার। তার বর্তমান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ।

স্পেন-
স্পেনকে বিশ্বকাপ জেতানো একমাত্র অধিনায়ক ইকার ক্যাসিয়াস। তার অসাধারণ নৈপুণ্যে ২০১০ সালের বিশ্বকাপ জেতে স্পেন। মাঝে দুই বিশ্বকাপে প্রত্যাশিত ফল না পেলেও লুইস এনরিকের অধীন বদলে গেছে তারা। উয়েফা নেসন্স কাপের ফাইনাল এবং ইউরোর সেমিফাইনালে খেলা স্পেন এবারের বিশ্বকাপে অন্যতম ফেভারিট বলে মনে করেন স্পেনের বিশ্বকাপজয়ী সাবেক অধিনায়ক ইকার ক্যাসিয়াস। দলটির নেতৃত্বে আছেন সার্জিও বুস্কেটস। বর্তমান ক্লাব বার্সেলোনা।

জাপান-
এ নিয়ে টানা সাতবারের মতো বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলবে জাপান। দলটির নেতৃত্বে আছেন মায়া ইয়োশিদা। যিনি বর্তমানে খেলছেন সিরি আ’র ক্লাব সাম্পদোরিয়ার হয়ে।

কোস্টারিকা-
ওশেনিয়া অঞ্চলের প্লে-অফে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে কাতারের টিকিট কাটে কোস্টারিকা। এ নিয়ে টানা তিন বিশ্বকাপে নিজেদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করল দলটি। ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপের পর ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপেও খেলেছিল তারা। কোস্টারিকার নেতৃত্বে আছেন ব্রায়ান রুইজ। তার বর্তমান ক্লাব আলাজুলিনিজ।

গ্রুপ এফ: বেলজিয়াম, ক্রোয়েশিয়া, কানাডা ও মরক্কো

বেলজিয়াম-
ইউরোপের ফুটবল পরাশক্তি বেলজিয়াম ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে আছে দ্বিতীয় অবস্থানে। ব্রাজিলের পরই আছে তারা। বেলজিয়ামের পরের অবস্থান আর্জেন্টিনা, ফ্রান্সসহ বাকি দেশগুলোর। দলটির নেতৃত্বে আছেন এইডেন হ্যাজার্ড। বর্তমানে খেলছেন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে।

ক্রোয়েশিয়া-
প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেই সুযোগ ছিল শিরোপা জেতার। তবে ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে তাদের স্বপ্ন ধূলিসাৎ করে শিরোপার উৎসব করে ফ্রান্স। এবার আবারও আসর শুরু করতে যাচ্ছে ক্রোয়াটরা। দলটির নেতৃত্বে আছেন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলা রিয়াল মাদ্রিদ।

কানাডা-
সেই ১৯৮৬ আসরে প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতার অর্জন করেছিল কানাডা। সেবার তিন ম্যাচ হেরে ও কোনো গোল না করে বিদায় নেয়ার পর আর বিশ্ব আসরে পা রাখা হয়নি তাদের। অবশেষে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আবার তারা বিশ্বকাপের যাত্রী। এবার তাদের কান্ডারি আতিবা হুটকিনসন।

মরক্কো-
আফ্রিকা অঞ্চলে শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ রেখে কাতার বিশ্বকাপে জায়গা করে নিয়েছে মরক্কো। ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর মাঝে ২০ বছরের বিরতি, এরপর ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে মূলপর্বে জায়গা করে নেয় মরক্কো। এর পর টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপে জায়গা করে নিল দলটি। নেতৃত্বে আছেন হোমা সাইস। বর্তমান ক্লাব উলভস।

গ্রুপ জি: ব্রাজিল, সুইজারল্যান্ড, সার্বিয়া ও ক্যামেরুন

ব্রাজিল-
সাম্প্রতিক মাসগুলোর পারফর্ম ভিত্তি করে কাতার বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে গ্লোবাল র‌্যাঙ্কিং মডেল তৈরি করেছে অপটা স্পোর্টস, যা অপটা স্পোর্টস ডেটা নামেও পরিচিত। ব্রিটিশ এই স্পোর্টস অ্যানালিটিক্যাল কোম্পানিটির প্রণিত র‌্যাঙ্কিং মডেলে ফ্রান্সের পাশাপাশি রেকর্ড চ্যাম্পিয়নধারী ব্রাজিলও শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে। ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জেতার সম্ভাবনা ১৫.৭৩ শতাংশ। সেলেসাওদের নেতৃত্বে আছেন থিয়াগো সিলভা। তিনি বর্তমানে খেলছেন চেলসির হয়ে।

সুইজারল্যান্ড-
ইউরোপ অঞ্চলের বাছাইয়ে ‘সি’ গ্রুপে ইতালি হতাশ করলেও বাজিমাত করে সুইজারল্যান্ড। দলটির নেতৃত্বে আছে গ্রানিত কাকা। যিনি বর্তমানে ইংলিশ ক্লাব আর্সেনালের হয়ে খেলছেন।

সার্বিয়া-
ইউরোপ অঞ্চলের বাছাইয়ে ‘এ’ গ্রুপের শীর্ষে থেকে কাতার বিশ্বকাপ নিশ্চিত করে সার্বিয়া। দলটির নেতৃত্বে আছেন ডুসান তাদিচ। তার বর্তমান ক্লাব অ্যাজাক্স।

ক্যামেরুন-
১৯৬৬ সালে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল ক্যামেরুন। কিন্তু দুর্ভাগ্য! কোনো ম্যাচ না খেলেই নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিল ক্যামেরুন। এরপর ১৯৮২ সালের বিশ্বকাপ খেলে কোনো জয় ছাড়াই দেশের বিমান ধরেছিল দলটি। ১৯৯০ সালের বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে ক্যামেরুন। এরপর বাকি বিশ্বকাপগুলোতে গ্রুপপর্ব অতিক্রম করতে পারেনি তারা। এবার দলটির নেতৃত্বে আছেন ভিনসেন্ট আবুবকর। তার বর্তমান ক্লাব আল নাসর।

গ্রুপ এইচ: পর্তুগাল, উরুগুয়ে, ঘানা ও দক্ষিণ কোরিয়া

পর্তুগাল-
বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে ছিল শঙ্কা। তবে সব শঙ্কা দূর করে কাতারের টিকিট নিশ্চিত করে রোনালদোর পর্তুগাল। হতে পারে এবারই সিআরসেভেনের শেষ বিশ্বকাপ। আর তাই সমর্থকরা আশায় প্রিয় ফুটবলারের হাতেই উঠুক কাঙ্ক্ষিত শিরোপাটা। পর্তুগালের প্রাণভোমরা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। যিনি বর্তমানে খেলছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে।

উরুগুয়ে-
দক্ষিণ আমেরিকান অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার পর কাতারের টিকিট কেটেছে উরুগুয়ে ও ইকুয়েডর। দলটির নেতৃত্বে আছেন দিয়েগো গর্ডিন।

ঘানা-
২০১০ সালে আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবারের মতো বসেছিল বিশ্বকাপের আসর। নিশ্চিতভাবেই সবার নজর ছিল আফ্রিকার দেশগুলোর দিকে। কিন্তু হতাশই করেছিল স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা, দিদিয়ের দ্রগবার আইভরি কোস্ট, ক্যামেরুন, নাইজেরিয়া এমনকি আলজেরিয়া। সবাই বিদায় নিয়েছিল গ্রুপপর্ব থেকেই। একমাত্র ব্যতিক্রম ছিল ঘানা। পুরো আফ্রিকার প্রতিনিধি হয়ে তারাই শুধু যেতে পেরেছিল নকআউট পর্বে। এবার আবারও বিশ্বকাপে ঘানা। পারবে কি রূপকথা লিখতে? দলটির কান্ডারি আন্দ্রে আয়ো। বর্তমান ক্লাব আল সাদ।

দক্ষিণ কোরিয়া-
এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে সিরিয়াকে হারিয়ে কাতার বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। এ নিয়ে টানা দশমবারের মতো বিশ্বকাপের মূল পর্বে জায়গা করে নিয়েছে ২০০২ আসরের সেমিফাইনালিস্ট দলটি। দলটির নেতৃত্বে সন হিউং মিন।

শেয়ার করুন