ডেস্ক রিপোর্ট

৩১ জুলাই ২০২২, ১:১৯ অপরাহ্ণ

সিলেটে করোনার ঝুঁকিতে বয়স্করা

আপডেট টাইম : জুলাই ৩১, ২০২২ ১:১৯ অপরাহ্ণ

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিলেটে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের বেশী ঝুঁকিতে রয়েছে বয়স্করা। সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের রিপোর্ট পর্যালোচনায় দেখা গেছে, এ অঞ্চলে সম্প্রতি করোনায় মারা যাওয়াদের বেশীরভাগ বয়স্ক। আবার তাদের করোনা সংক্রমণও বেশী। ভ্যাক্সিন নেয়া বয়স্করাও করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন।

শুক্রবার রাতে সিলেটের করোনা ডেডিকেটেড শহীদ ডা: শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে মৃত্যু হয় ৮৩ বছর বয়সী এক শিক্ষকের। বিশ্বনাথ দে নামের ওই শিক্ষক সিলেটের মদনমোহন কলেজের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ছিলেন।

শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) মিজানুর রহমান জানান, তাদের হাসপাতালে গত কয়েকদিনে যেসব লোকের মৃত্যু হয়েছে, তাদের বেশীর ভাগ বয়স্ক। গতকাল শনিবার পর্যন্ত তাদের হাসপাতালে ভর্তি ১৫ জন রোগীই বয়স্ক। তাদের অনেকে ক্যান্সার, হার্টের সমস্যা, শ্বাস কষ্ট ও কিডনীসহ আরো নানা সমস্যা রয়েছে। করোনার পাশাপাশি এসব সমস্যার কারণে কোন কোন রোগীর মৃত্যু হচ্ছে। তিনি জানান, এসব রোগীদের অনেকে বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি থাকেন। কোভিড পজিটিভ হলে তাদেরকে ভর্তি করা হয় শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে। শুক্রবার রাতে মারা যাওয়া বিশ্বনাথ দে’র শ্বাসকষ্টসহ আরো নানাবিধ সমস্যা ছিল। তবে, হাসপাতালে বর্তমানে কোন রোগী আইসিইউতে নেই বলে জানান তিনি।

সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের রিপোর্ট পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গত ২২ জুলাই সিলেটে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৯০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। করোনার পাশাপাশি তাঁর বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা ছিল। এছাড়া, গত ১০-১৪ জুলাইয়ের মধ্যে করোনায় মারা যাওয়া দুজনই বয়স্ক। এছাড়া, গেল ঈদুল আযহার দিন সিলেটে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বিশ্বনাথের ৯৮ বছর বয়সী এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়। ওই মহিলা ডাবল ডোজ ভ্যাক্সিনেটেড ছিলেন।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, স্বাস্থ্যবিধি না মানায় সিলেট বিভাগে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। এখানকার শতভাগ মানুষ এখনও টিকার আওতায় আসেনি। মানুষজনের মাস্ক ব্যবহার না করা, ঘন ঘন স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে হাত না ধোয়া, রাস্তায় চলতে একজন থেকে অপরজনের দূরত্ব বজায় না রাখার ফলে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ।

সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হিমাংশু লাল রায় জানান, স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে কিছু মানুষ করোনায় (কোভিড -১৯) আক্রান্ত হচ্ছে। তবে যারা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে; তারা অবস্থা ততটা সিরিয়াস হচ্ছে না। তিনি আরো জানান, রাস্তাঘাটে চলতে জনগণ যদি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে; তবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা কমবে। তিনি সকলকে চলতি পথে মাস্ক ব্যবহার, কোন কিছু খাবার আগে অবশ্যই হাত সাবান বা স্যানিটাইজার দিয়ে ভালো করে ধুতে হবে।

সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের শনিবারের বুলেটিনে জানানো হয়, শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার (৩০ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত এ বিভাগে ১০৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ১৩.০৮ ভাগ। আক্রান্তদের মধ্যে সিলেট জেলায় ১০, হবিগঞ্জে ২ও মৌলভীবাজারে ২ জন রয়েছে। সিলেট বিভাগে এ পর্যন্ত করোনা কেড়ে নিয়েছে মোট ১ হাজার ২৪৪ জনের প্রাণ। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ৯২৫, সুনামগঞ্জে ৭৫, হবিগঞ্জে ৪৯ ও মৌলভীবাজারে ৭২ জন। এছাড়া সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে। সূত্র- সিলেটের ডাক।

শেয়ার করুন