ডেস্ক রিপোর্ট

২১ আগস্ট ২০২২, ৫:১৩ অপরাহ্ণ

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে সিলেটে সরকারি কৌশলীবৃন্দের আলোচনা সভা

আপডেট টাইম : আগস্ট ২১, ২০২২ ৫:১৩ অপরাহ্ণ

শেয়ার করুন

২১ আগস্ট বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে রোববার দুপুরে আলোচনা সভা আয়োজন করে সিলেট জজ আদালতের সরকারি কৌশলীবৃন্দ। জজ আদালতের সরকারি কৌশলীবৃন্দের কার্যালয়ে আয়োজিত এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সিলেটের সরকারি কৌশলী অ্যাডভোকেট মো. রাজ উদ্দিন।

সভায় বক্তব্য রাখেন- সরকারী কৌশলী (ভিপি জিপি) ফকরুল ইসলাম, অতিরিক্ত সরকারি কৌশলী হোসেন আহমেদ, আজিজুর রহমান, বিনয় ভূষন দাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা নিরঞ্জন চন্দ্র সরকার, সহকারী কৌশলী দেবতোষ দেব, মো. শহীদুল ইসলাম, বিপ্রদাস ভট্টাচার্য্য, দেবাশীষ কুমার দাস, এ এইচ এম রুহুল হুদা, সন্তু দাস, দয়াল চন্দ্র দাস, মুহিতুর রহমান তালুকদার, দিলীপ কুমার কর, মহিউদ্দিন, সৌরভ দত্ত চৌধুরী, বিজয় কুমার দেব, বিপ্লব চক্রবর্তী।

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে সিলেটের সরকারী কৌশলী মো. রাজ উদ্দিন বলেন, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমাবেশে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এতে দলের নেতা–কর্মীসহ ২৪ জন নিহত হন। আহত হন পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী। সেদিন অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই হামলার ঘটনায় আহতদের অনেকে এখনও শরীরে গ্রেনেডের স্প্লিন্টার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতেই বিএনপি-জামায়াত তথা চারদলীয় জোট সরকার রাষ্টযন্ত্র ব্যবহার করে নৃশংসতম এই গ্রেনেড হামলা চালায়।

আলোচনা সভায় সরকারী কৌশলী মো. রাজ উদ্দিন আরো বলেন,  ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার ব্যাপারে সরকার যথেষ্ট আন্তরিক। এই হামলা মামলার বিচার কতদিন পর শুরু হয়েছিল তা দেশের মানুষ জানেন। আলোচিত এ মামলাটির বিচার করতে গিয়ে জজ মিয়া নাটক সাজানো হয়েছিল তাও সবাই জানে। মামলার আসামীদের মধে ১৬ জন এখনো পলাতক রয়েছেন। তাদের ফিরিয়ে আনার বিষয়ে চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে সরকারের তরফ থেকে বলা হচ্ছে। মামলাটি অধস্তন আদালতে বিচার শেষ হতে দীর্ঘ সময় লেগে যায়। এটি এখন উচ্চ আদালতে আছে। শিগগিরই এই মামলার আপিল শুনানি শুরু হবে বলে আমি আশাবাদী।

শেয়ার করুন