ডেস্ক রিপোর্ট

২ ডিসেম্বর ২০২২, ৫:৩৯ অপরাহ্ণ

দক্ষ আইনজীবী হতে হলে আইন চর্চার বিকল্প নেই : এম. এ. মান্নান এম.পি

আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ২, ২০২২ ৫:৩৯ অপরাহ্ণ
দক্ষ আইনজীবী হতে হলে আইন চর্চার বিকল্প নেই : এম. এ. মান্নান এম.পি

শেয়ার করুন

#সিলেটে আইনজীবী সমিতির বার্ষিক নৈশভোজে পরিকল্পনামন্ত্রী

দক্ষ আইনজীবী হতে হলে আইন বিষয়ে চর্চা করে সঠিক জ্ঞান অর্জন করতে হয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এম.এ. মান্নান এম.পি. মহোদয় একথা বলেছেন। বৃহস্পতিবার (০১ ডিসেম্বর) রাতে সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক নৈশভোজ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচিত সম্মানিত সভাপতি মোঃ সামছুল হক এডভোকেটের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক-১ বিজিত লাল তালুকদার এডভোকেট এবং যুগ্ম সম্পাদক-২ শাবানা ইসলাম এডভোকেটের যৌথ সঞ্চালনায়
সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির ঐতিহ্য ও ইতিহাসের প্রশংসা করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসময় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম.এ.মান্নান এম.পি. আরোও বলেন বিচার বিলম্বিত হলে অবিচার কায়েম হয়। আমাদের দেশ থেকে সবাই মিলে এটি দূর করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই আল কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সিনিয়র সদস্য মোঃ আব্দুর রহমান চৌধুরী এডভোকেট ও গীতা পাঠ করেন সমিতির সিনিয়র সদস্য ড. দিলীপ কুমার দাশ চৌধুরী এডভোকেট।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির দুই বারের নির্বাচিত সম্মানীত সাধারণ সম্পাদক জনাব মাহফুজুর রহমান এডভোকেট।

বক্তব্যে তিনি সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে বৃহত্তর সিলেটের দুই কৃতি সন্তান তথা দুই মন্ত্রী মহোদয়ের নিকট কিছু দাবী তোলে ধরেন।

মাননীয় প্রধান অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এম.এ. মান্নান এম.পি. মহোদয় ও প্রধান বক্তা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ডা. এ.কে. আব্দুল মোমেন এম.পি. মহোদয় বর্তমান আইনজীবী বান্ধব সরকারের পক্ষে আমাদের বৃহত্তর সিলেটের অভিভাবক হিসাবে দায়িত্ব পালনরত আছেন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আইনজীবী বান্ধব ও জন কল্যাণকামী নেত্রী। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিচ্ছ সারা বাংলাদেশের আইনজীবীদের জন্য ২০ (বিশ কোটি) টাকা আর্থিক প্রনোদনা দেওয়ার জন্য। সেই টাকার মধ্যে আমাদের বারে ৬০,৪৯,২৪০/- টাকা বরাদ্দ প্রদান করেছেন। আমাদের সিলেট বার সদস্য সংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশের

৩ নং স্থানে অবস্থিত। আমাদের সাধ আছে সুনাম আছে কিন্তু সাধ্য সীমিত। আমাদের ৪ নং বারটি টিনের ছানিযুক্ত দীর্ঘদিনের পুরাতন ও অস্বাস্থ্যকর হিসাবে বিদ্যমান আছে। এই জায়গায় ৫/৬ তলা বিশিষ্ট একটি দালান নির্মিত হলে আমাদের বসার স্থানের সংকুলান হবে এবং বারের আয়ের উৎস সৃষ্টি হবে। মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় আমরা জানি আপনি নিজগুনে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর
বিশ্বস্থ কাছের মন্ত্রী হিসাবে গুরুত্বপূর্ণ পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আছেন।

আপনার ক্ষমতা বিশাল। আপনার ছোয়ায় সুনামগঞ্জ আজ ঝলমলে সুনাগঞ্জে পরিণত হয়েছে। মাননীয় প্রধান বক্তা আপনি আমাদের আইনজীবী পরিবারের সন্তান। আপনার পিতা এই বারে সুনামের সহিত আইনপেশা পরিচালনার পাশাপাশি এই বারের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন। আপনার পিতা সিলেট ল’কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্যে একজন এবং আপনার অগ্রজ ভাই সাবেক অর্থমন্ত্রী জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত এম.পি. সাহেবের বধৌলতে আমরা আমাদের ৫ নম্বর বারের পাঁচতলা বিশিষ্ট ভবন পেয়েছি এ জন্য আমরা কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। অনুমান ৫/৬ শতক ভ‚মির উপর আমাদের প্রয়োজনীয় ৪ নং বারটি নির্মাণে আপনাদের কৃপা দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমাদের ২ নম্বর বার লাইব্রেরী অত্যন্ত ঝুকিপূর্ণ যেকোন সময় বড় দূর্ঘটনা ঘটকে পারে।

তাই এই ভবনটি এখনই ভেঙ্গে একটি বহুতল ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা একনই নিতে হবে। বৃহত্তর সিলেটের কৃতি সন্তান হিসাবে আপনারা সিলেট বারের পাশে থাকবেন এটাই আমাদের প্রত্যাশা। বৃহত্তর সিলেটের কৃতি সন্তান হিসাবে সিলেট বারের পক্ষ থেকে আপনাদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ূ কামনা করছি।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আব্দুল মোমেন এম.পি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেটের মাননীয় সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ জনাব মশিউর রহমান চৌধুরী, সিলেটের মাননীয় মহানগর দায়রা জজ
জনাব এ.কিউ.এম. নাছির উদ্দিন, সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ নাসির উদ্দীন খান এডভোকেট, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য এবং হিউম্যান রাইট এন্ড লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান জনাব এ.এফ. মোঃ রুহুল আনাম চৌধুরী (মিন্টু) এডভোকেট, সিলেটের বিজ্ঞ সরকারি কৌঁসুলি জনাব মোঃ রাজ উদ্দিন এডভোকেট, সিলেটের বিজ্ঞ পাবলিক প্রসিকিউটর জনাব মোঃ নিজাম উদ্দিন এডভোকেট ও মহানগর দায়রা জজ আদালত সিলেটের বিজ্ঞ পাবলিক প্রসিকিউটর জনাব নওশাদ আহমদ চৌধুরী এডভোকেট।

আরোও বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ.কে.এম. আজাদুর রহমান এডভোকেট, হবিগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সালেহ উদ্দিন আহমদ এডভোকেট ও সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি
রবিউল লেইছ রুকেশ এডভোকেট প্রমুখ।

এবছর সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্যদের মধ্যে আইনপেশায় ২৫ বছর পূর্ণ হওয়া ১৪ আইনজীবী মোঃ রেজাউর রহমান চৌধুরী, গোলাম ইয়াহ-ইয়া চৌধুরী সুহেল, মোঃ আব্দুল মুকিত জাহাঙ্গীর, মোঃ বেলাল উদ্দিন, মোঃ আনছারুজ্জামান, আলী মোস্তফা মিশকতুন নূর, সালমা সুলতানা, মোঃ নাসিরুজ্জামান নাজিম, নাজমা বেগম, জাকির আহমদ, তাপস কান্তি ভট্টাচার্য্য, মোঃ এখলাছুর রহমান, আব্দুর রকিব মন্টু ও শরীফা বেগম অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও প্রধান বক্তার নিকট থেকে সম্মাননা স্বারক গ্রহণ করেন।

এবছর এইচ.এস.সি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত সমিতির সদস্যদের ৪৯ জন মেধাবী সন্তানকে এককালিন বৃত্তি ও সনদ প্রদান করেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।

সমিতির বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ।
নৈশভোজ উপলক্ষে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সমাজ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সোহেল মিয়া এডভোকেট ও সহ-সমাজ বিষয়ক সম্পাদক মুহাম্মদ হুছাইনুর রহমান (লায়েছ) এডভোকেটের যৌথ সঞ্চালনায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন ক্লোজআপ
ওয়ান তারকা ২০০৫ জনপ্রিয় শিল্পী নোলক বাবু, বিজিত লাল তালুকদার এডভোকেট, যুগ্ম সম্পাদক-১, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতি, বেতার শিল্পী তন্নী দেব, মায়া, বেতার শিল্পী বাসুদেব গোস্বামী, জয়ন্ত, বেতার শিল্পী কাইপা আক্তার রিনিয়া ও পুষ্পা চৌধুরী এবং তবলায় ছিলেন সুরজিত দে তনু, প্যাডে ছিলেন সুদীপ পাল, কি- বোর্ডে পিয়াল দত্ত, বেইজ গিটারে অমিত দাশ অপি

শেয়ার করুন